ডোমেইন নেম কেনা বেচার ব্যবসার আদ্যোপান্ত

অনলাইন থেকে অর্থ আয় করা যায় এ কথাটা আর কারো কাছেই নতুন নয়। তবে অনলাইন থেকে সেই অর্থ কিভাবে আয় করতে হয় সে কথা অনেকেরই হয়তো জানা নেই। অনলাইন থেকে আয় করার অগণিত পদ্ধতি রয়েছে। অজস্র এসব উৎসের মধ্যে রয়েছে ডোমেইন নেম কেনা বেচা। ডোমেইন নেম বেচা কেনা করে বিপুল পরিমাণ অর্থ আয় করা সম্ভব।  

ডোমেইন নেম কেনা বেচা করতে হলে ডোমেইন সম্পর্কে সম্যক ধারণা থাকা খুবই জরুরি। এর বাইরে কোথা থেকে ডোমেইন কেনা যাবে এবং কোথায় বিক্রি করা যাবে সে তথ্যও জানতে হবে। আজকের লেখায় ডোমেইন নেম কেনা বেচা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।   

ডোমেইন নেম কী

খুব সহজ ভাষায় বলা যায় ডোমেইন নেম হলো ওয়েবসাইটের ঠিকানা। ওয়েবসাইটগুলো মূলত বিভিন্ন সার্ভারে সংরক্ষিত থাকে। পৃথিবীর যে কোনো স্থান থেকে যে কেউ সেই কম্পিউটারে প্রবেশ করতে পারে। তবে সেই কম্পিউটারে প্রবেশ করতে চাইলে কিছু নির্দিষ্ট কোড টাইপ করার প্রয়োজন হয়, যেমনঃ 103.78.224.0 এবং এই কোডকেই আইপি অ্যাড্রেস নামে ডাকা হয়।   

বিপত্তির কথা হলো, পৃথিবীতে এমন কোটি কোটি ওয়েবসাইট রয়েছে যার সবগুলোর কোড মানুষের পক্ষে মনে রাখা সম্ভব নয়। এই সমস্যা সমাধানকল্পেই এসেছে ডোমেইন নেম। অর্থাৎ এই কোডগুলোকে নামে পরিবর্তন করা হয়েছে যেমন facebook.com । এখানে .com ডোমেইন হচ্ছে ডোমেইন নেম এক্সটেনশন। সর্বোচ্চ তেষট্টি ক্যারেক্টারের মধ্যে ডোমেইন নেম লিখতে হয়। ডোমেইন নেমে শুধু বর্ণ, সংখ্যা এবং হাইফেন ব্যবহার করতে হয়।

ডোমেইন নেম এক্সটেনশন ৬৩ ক্যারেক্টারের বেশি হওয়া যাবে না; Image Source: cultofweb.com

ডোমেইন নেম কেনা বেচার উপায়

নানা ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান ওয়েবসাইট তৈরি করার পর ডোমেইন কেনে। ডোমেইন নেম কেনার জন্য অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে।

গোড্যাডি সাইট থেকে ডোমেইন নেম কেনা যায়; Image Source: winningwp.com

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুক ২০১০ সালে fb.com ডোমেইনটি কেনে। ডোমেইনটি কোনো ডোমেইন কেনা বেচার ওয়েবসাইটে ছিলো না, এটি ছিলো একটি ছেলের কাছে যে ডোমেইনটি আগে কিনে রেখে দিয়েছিলো। পরে ফেসবুক যখন এটি কিনতে চায়, ঐ ছেলে তখন সেটি আট দশমিক পাঁচ মিলিয়ন ডলারে বিক্রি করে দেয়!

ফেসবুক আট দশমিক পাঁচ মিলিয়ন ডলারে fb.com ডোমেইন কিনে নেয়; Image Source: informationin.com

বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় মোবাইল ফোন নির্মাতা চীনা কোম্পানি শাওমি mi.com ওয়েবসাইটটি একইভাবে ২০১৪ সালে তিন দশমিক ছয় মিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে কিনে নেয়।

পেশাদারিভাবে ডোমেইন নেম কেনা বেচা করার কাজকে ডোমেইন পার্কিং বা ডোমেইন ফ্লিপিং বলে। ডোমেইন কেনা বেচার ওয়েবসাইটগুলো ইদানিং তাদের সাইট থেকে ডোমেইন কেনার পর সেটি অন্যের কাছে বিক্রি করার সুযোগ দেয়। এরকম জনপ্রিয় কিছু ওয়েবসাইট হচ্ছেঃ নেইমচিপ ডট কম, গোড্যাডি ডট কম, সেডো ডট কম, ফ্লিপ্পা ডট কম, ইগ্লু ডট কম, আফটারনিক ডট কম, নেইমজেট ডট কম, ডোমেইননেমসেলস ডট কম।

এ সকল ওয়েবসাইট থেকে প্রথম দিকে সাত থেকে দশ ডলারের বিনিময়ে এক বছরের জন্য ডোমেইন কেনা যায়। কেনার পর এই ডোমেইন নেমকে ইচ্ছামতো মূল্যে তাদের ওয়েবসাইটেই আবার বিক্রি করা যায়। ডোমেইন বিক্রি হওয়ার পর ওয়েবসাইটে সরাসরি অর্থ জমা হয়ে যায়।  

ডোমেইন নেম কেনা বেচার কয়েকটি টিপস

সকল ব্যবসায়ে সফল হতে যেমন কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়, ডোমেইন নেম কেনা বেচার ব্যবসায়েও তেমনি বেশ কিছু কৌশলের আশ্রয় নিতে হয়। এইরকম কয়েকটি কৌশল হলোঃ

টার্গেট নির্ধারণ করা

কাদের নিয়ে কাজ করা হবে তার ভিত্তিতে ডোমেইন নেম নির্ধারণ করতে হবে। টার্গেট হিসেবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ই-কমার্স, কোম্পানি, হাসপাতাল, দাতব্য সংস্থা ইত্যাদি টার্গেট হিসেবে নেওয়া যেতে পারে। অবস্থা বিবেচনা করে মূল্য নির্ধারণ করে দিতে হবে। মূল্য বেশি হলে অনেকেই কম মূল্যের ডোমেইন কিনে নেয়। তাই তাদেরকেই টার্গেট করতে হবে যারা ডোমেইন কিনতে বাধ্য।  

মেয়াদোত্তীর্ণ ডোমেইন কেনা

অনেক ওয়েবসাইটের মালিকই ডোমেইনের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও ডোমেইন নবায়ন করে না। সেসব ডোমেইন কিনতে পারলে অনেক লাভবান হওয়া সম্ভব। এদের গুগল র‍্যাংক বেশি হওয়াতে অনেক মানুষ কিনতে আগ্রহী হয়।

বাজার গবেষণা করা

নিয়মিত বাজার গবেষণা চালিয়ে কোন ধরনের ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান ডোমেইন বেশি কিনছে সেটিতে নজর রাখতে হবে।  

সঠিক কিওয়ার্ডে ডোমেইন নির্বাচন করা

মোবাইল হ্যান্ডসেট বিক্রির সাইট তৈরিতে মোবাইল হ্যান্ডসেট সংক্রান্ত কিওয়ার্ডে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। এসইও র‍্যাঙ্কের জন্য এসকল কিওয়ার্ড জরুরি।  

ডোমেইন নেইম কেনা বেচার ব্যবসায়ের ভবিষ্যত

ডোমেইন নেইম কেনাবেচার ব্যবসায়ের ভবিষ্যত সম্পর্কে জানতে হলে পরিসংখ্যানে চোখ বোলাতে হবে। গত ৩০ আগস্ট, ২০১৯ তারিখে ডোমেইন বিক্রির কয়েকটি সাইটে ডোমেইন নিবন্ধনের তথ্য দেখে নেওয়া যাকঃ  

  • চেংদু ওয়েস ডাইমেনশন ডিজিটাল কোম্পানি লিমিটেড- ৫৭৬০৭ টি
  • গোড্যাডি- ১৯৫৪৬ টি
  • নেইমচিপ- ১৮৬৭০ টি
  • আলিবাবা ক্লাউড কম্পিউটিং লিমিটেড- ১০৬৪৪ টি
  • নেটওয়ার্ক সলিউশনস- ৫৯৩০ টি  
৩০ আগস্ট ২০১৯ তারিখে .top এক্সটেনশনের সাইট বেশি রেজিস্টার্ড হয়েছে; Image Source: domainnamestat.com

এরকম শত শত সাইট থেকে অজস্র ডোমেইন প্রতিদিন রেজিস্টার্ড হচ্ছে। এ ব্যবসায়ে সময় ও মেধা খটালে প্রচুর অর্থ আয় করা সম্ভব। ডোমেইন নেইম কেনা বেচা করে বিভিন্ন সাইট মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার অর্থ আয় করেছে।  

সব ব্যবসায়ের মতো ডোমেইন কেনা বেচার ব্যবসায়ে ঝুঁকি রয়েছে। ডোমেইন বেচা কেনা করে স্বল্প সময়ে ধনী হয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই। এর জন্য প্রয়োজন প্রচেষ্টা, ধৈর্য্য ও বিনিয়োগ।

ফিচার ছবি: blog.ironbastion.com.au

Written by Sadman Sakib

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অনলাইন সার্ভে থেকে আয় করার সুযোগ

ওয়েবসাইট কেনাবেচার ব্যবসা সম্বন্ধে যা জানা প্রয়োজন